স্পেনের তাপমাত্রা মাইনাস ১৪ ডিগ্রি

স্পেনের ইতিহাসে গত ৫০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তুষারপাতে বিপর্যস্ত। ফিলোমেনার তুষার ঝড়ের কবলে পড়ে তুষারে ঢেকে গেছে দেশটির অর্ধেকের বেশি অংশ। মাদ্রিদের তাপমাত্রা মাইনাস (-১৪) ডিগ্রিতে নামার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে দেশটির আবহাওয়া অফিস। ব্যাপক তুষারপাতে সড়ক ও ট্রেন বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়া দেশটির নাগরিকদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা পায়ে হেঁটে কর্মস্থলে যেতে হচ্ছে। করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন সরবরাহের কাজও ব্যাহত হচ্ছে তুষার পাতের জন্যে।

গত ৫০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তুষারপাত হয়েছে মাদ্রিদে তুষার-ঝড় ফিলোমেনার কারণে। স্পেনের প্রায় ২০ হাজার কিলোমিটার সড়ক এখন বরফের পুরু আস্তরের নিচে রয়েছে। এছাড়া মাদ্রিদে কোনো কোনো জায়গায় ৪০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বরফ জমেছে। বরফে আটকা পড়েছে অনেক যানবাহন ও মানুষজন, সেখানে খাবার ও পানি ছাড়া প্রায় ১২ ঘণ্টা ধরে আটকে রয়েছে অনেকে। রবিবার পর্যন্ত প্রায় ৫০০ সড়কে আটকে পড়া ১৫০০ বেশি মানুষকে উদ্ধার করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মাদ্রিদ বিমানবন্দর।

এছাড়া মাদ্রিদের স্বাস্থ্যকর্মীরা হিমসিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ সামলাতে। স্বাস্থ্যকর্মীরা সড়ক ও ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় কর্মস্থলে যেতে পারছেন না। এর জন্যে কর্মস্থলে থাকা স্বাস্থ্যকর্মীদের অনেকেই নির্ধারিত কর্ম-ঘণ্টার দ্বিগুণ-তিনগুণ কাজ করতে হচ্ছে। অনেকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা পায়ে হেঁটে দীর্ঘ পথ প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কর্মস্থলে যাচ্ছেন।

আবহাওয়া বিভাগ পূর্বাভাস দিয়েছে এ সপ্তাহেই মাদ্রিদের তাপমাত্রা মাইনাস ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস নিচে নামতে পারে বলে আশা করছেন। এছাড়া আগামী ২৪ ঘণ্টায় আরও তুষারপাতের কারণে পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। স্পেনের অন্তত দশটি প্রদেশে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত বরফে আটকা পড়ে এবং ঠাণ্ডায় জমে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া উপচে পড়া বরফে নদীর পানিতে গাড়ি ভেসে গিয়ে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.