যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবন অবরুদ্ধ

    মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরীদেরট মারমুখী বিক্ষোভের মুখে ওয়াশিংটনে ক্যাপিটল ভবন অবরুদ্ধ করতে বাধ্য হয় পুলিশ, যেখানে কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে নির্বাচনে জো বাইডেনের জয়ের স্বীকৃতির প্রক্রিয়া চলছিল। । এরই এক পর্যায়ে শুরু হয় বিক্ষোভ। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদুনে গ্যাস ও পেপার স্প্রে ব্যবহার করে পুলিশ। পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। এক পর্যায়ে গুলিবিদ্ধ হন এক নারী। পরে তার মৃত্যু হয়েছে। নারীর নিহতের তথ্য নিশ্চিত করলেও তার নাম পরিচয় জানায়নি পুলিশ।

    সিএনএন ও বিবিসি বার্তা মাধ্যম জানায়, ক্যাপিটল ভবনের চারপাশে জড়ো হন কয়েক হাজার ট্রাম্প সমর্থক। তাদের মধ্যে ছিল মারমুখী ভাব। প্রথমে তারা ওই ভবনে ঢোকার চেষ্টা চালান। এ সময় পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে ফাঁকা গুলি চালায় এবং কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। এই পরিস্থিতিতে সেনেট অধিবেশনও মুলতবি করা হয়। যৌথ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করা ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকেও পাহারা দিয়ে অধিবেশন কক্ষ থেকে বের করে পুলিশ। এ সময় পুলিশ অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত আইনপ্রণেতাদের তাদের আসনের নিচ থেকে গ্যাস মাস্ক বের করে পরার পরামর্শ দেয়।

     সিএনএনের এক কর্মী জানিয়েছেন ক্যাপিটল ভবন অবরুদ্ধ করার পর সেখান থেকে কেউ বের হতে পারছিলেন না। এদিকে ভবনের বাইরে ট্রাম্প সমর্থকরা স্লোগান দিচ্ছিলেন। এছাড়া এক টুইট বার্তায় সমর্থকদের ‘শান্তিপূর্ণভাবে’ বিক্ষোভ করার আহ্বান জানিয়েছেন ট্রাম্প।