মেসির জোড়া গোলে বার্সেলোনা জয়

   অ্যাথলেটিক ক্লাব বিলবাওয়ের মাঠে বার্সেলোনা ম্যাচের তিন মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে । তবে এরপরই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ায় কাতালান দলটি। দুর্দান্ত আক্রমণে বিপর্যস্ত করে রাখে বিলবাওয়ের গোটা দলকে। দলের পারফরম্যান্সের ওঠানামার মাঝে নিজেও ভুগছিলেন কিছুটা। কয়েকটি ম্যাচে ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। সেই আড়াল থেকে যেন বেরিয়ে এলেন লিওনেল মেসি। বুধবার রাতে লিওনেল মেসির জোড়া গোলে ৩-২ ব্যবধানের জয় নিয়ে ঘরে ফেরে বার্সা। দারুণ এই জয়ে মৌসুমে এই প্রথম শীর্ষ তিন নম্বরে উঠল দলটি।
     বিলবাও শুরুতেই   বার্সেলোনাকে পেয়ে বসে । দারুণ এক আক্রমণের মধ্যে দিয়ে  তৃতীয় মিনিটের মাথায়  এগিয়ে যায় বিলবাও। মাঠের মাঝখান থেকে সতীর্থের থ্রু পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে অনায়াসে ডুকে পড়ে  ডিফেন্ডার ক্লেমোঁ লংলেকে ফাঁকি দিয়ে নিচু শটে জাল  খুঁজে নেন উইলিয়ামস। আবার দুই মিনিট পর পাল্টা আক্রমণের সমতা টানার সুযোগ পায় বার্সেলোনা। তবে গোলরক্ষক ঠিকই   সের্জিনো দেস্তের শটটি ঝাঁপিয়ে ধরে ফেলেন  । আবার  উসমান দেম্বেলের ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া জোরালো শটটিও  দারুণ নৈপুণ্যে ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক উনাই সিমোন।
       অনেক কঠিন সময় পার করার পরের মিনিটে বার্সেলোনা গোলের দেখা পায় ।মেসি  বাঁ দিক থেকে নেওয়া  দূরের পোস্টের ক্রসটি বেরিয়েই যাচ্ছিল। ঠিক তারই শেষ মুহূর্তের  সময় ফ্রেংকি ডি ইয়ং বাইলাইন থেকে লাফিয়ে  বলটি ছয় গজ বক্সের মুখে বাড়ান । আর পেদ্রি অনায়াসে বলটি হেড করে জালে পাঠান। ৩৮তম মিনিটে পেদ্রি-মেসির এই দারুণ পারফরম্যান্স দলকে এগিয়ে নিয়ে যায় । অধিনায়ক তরুণ খেলোয়াড় সতীর্থকে  ডি-বক্সের মুখে  বল বাড়িয়ে এগিয়ে যান । এদিকে পেদ্রিও সময় নষ্ট না করে ব্যাক-হিলে ফিরতি পাস দেন মেসিকে।ঠিক কিছু সময় পর ডি-বক্সে প্রথম ছোঁয়ায় নিচু শটে গোলটি করেন তিনি।বার্সেলোনা  দুই মিনিটের ব্যবধানে আরও দুটি দারুণ সুযোগ পায় । গ্রিজমানের জোরালো শটটি সিমোন রুখে দেওয়ার পর ডি-বক্সের সামনে  থেকে  মেসি ঠিকমতো শটটি নিতে পারেননি ।
         বিরতি থেকে ফিরে  ষষ্ঠ মিনিটের সময়  আত্মঘাতী গোল খেতে বসেছিল বার্সেলোনা।পরে   ম্যাচের ৬২ মিনিটে অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় নিজের দ্বিতীয় গোল আদায় করে নেন মেসি।  রেকর্ড ছয়বার বর্ষসেরা ফুটবলারের আসরে গোল হলো ৯টি।  আর বার্সা এগিয়ে যায় ৩-১ ব্যবধানে। এর ঠিক মিনিট দশেক পর মেসির শট গোলপোস্টে লেগে ফিরে আসলে হ্যাটট্রিক পূর্ণ হয়নি তাঁর। তবে খেলা শেষের অন্তিম মুহূর্তে একটি গোল পরিশোধ করে অ্যাথলেটিক ক্লাব বিলবাও। তবে শেষ পর্যন্ত বার্সেলোনা ৩-২ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে। ১৭ ম্যাচে ৯ জয় ও ৩ ড্রয়ে তিন নম্বরে উঠে আসা বার্সেলোনার পয়েন্ট ৩১।আর এদিকে ১৮ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে বিলবাও।