ভারতে জানুয়ারিতে কোভিড টিকাদান কর্মসূচি শুরুর আশা

ভারত আগামী জানুয়ারি মাসে করোনার টিকা দেওয়া শুরুর পরিকল্পনা নিয়েছে। আজ শুক্রবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলেছেন, ভারতে জানুয়ারিতে করোনার টিকা দেওয়া শুরু করার বিষয়ে আশা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বিবিসিকে বলেন, একাধিক কোম্পানি ভারতে তাদের টিকার জরুরি অনুমোদনের আবেদন করেছে। ‘আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই’ হয়তো তাদের কেউ ‘ড্রাগ রেগুলেটরের’ অনুমোদন পেয়ে যাবে।

বিবিসি জানায়, দুইটি কোম্পানি এরই মধ্যে ভারতে তাদের কোভিড টিকার অনুমোদন পেতে আবেদন করেছে। আরো ছয়টি কোম্পানির টিকা ‘ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের’ ‍নানা ধাপে রয়েছে। দেশটি আগামী অগাস্টের মধ্যে ৩০ কোটি মানুষকে টিকার আওতায় আনতে চায়। ভারত বিশ্বের নানা কোম্পানির কাছ থেকে লাখ লাখ ডোজ টিকা কিনতে ‘আগাম বুকিং’ দিয়ে রেখেছে বলে গণমাধ্যমে যে খবর প্রকাশ পেয়েছে তার সঙ্গে দ্বিমত পোষন করেন ওই কর্মকর্তারা। বলেন, দেশীয় কোম্পানির হাতে যে পরিমাণ টিকার মজুদ আছে সরকার তাতেই সন্তুষ্ট।ভারতে এখন পর্যন্ত প্রায় এক কোটি মানুষের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন এক লাখ ৪৪ হাজারের বেশি মানুষ।

কোভিড টিকাদান কর্মসূচির জন্য ভারতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ৫০ বছরের বেশি বয়সের ব্যক্তিদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। আগামী জানুয়ারি থেকে অগাস্টের মধ্যে ৩০ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে ভারতে। দেশটির প্রায় এক কোটি স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, সেনাসদস্য, পৌরকর্মী ছাড়াও মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সম্মুখসারিতে থাকা পেশাজীবীরা আগে টিকা পাবেন বলে জানিয়েছেন তারা।