দেশের হেলমেট মানসম্মত নয়

মোটরবাইকে হেলমেট ব্যবহার বাধ্যতামূলক। আগে অনীহা থাকলেও সম্প্রতি ট্রাফিক বিভাগের কড়াকড়িতে হেলমেটের ব্যবহার অনেক বেড়েছে। তবে তা যতটা মামলা এড়ানোর জন্য, ততটা নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য নয়। বেশীরভাগ মানুশ টাকা বাঁচানোর জন্য হেলমেট কিনলেও কিনছেন না নিজের নিরাপত্তার জন্য। মোটরসাইকেলে হেলমেট ব্যবহার বাড়লেও, নিশ্চিত হচ্ছে না নিরাপত্তা। কারণ এর বেশিরভাই মানসম্মত নয়।

বুয়েটের এক গবেষণা বলছে, দেশে ব্যবহৃত হেলমেটের বেশিরভাগই দুর্ঘটনায় সুরক্ষা দেবে না। হেলমেটের মান পরীক্ষার দায়িত্ব বিএসটিআইর হলেও প্রতিষ্ঠানটির সেই সক্ষমতা নেই। বিএসটিআই এর বাধ্যতামূলক মান পরীক্ষার তালিকার ১৪০ নম্বর পণ্য মোটরসাইকেল ও স্কুটারের হেলমেট।

১৯৮৬ সালে তালিকাভুক্ত হওয়ার পর ৩৩ বছরেও এর মান পরীক্ষার কোনো ব্যবস্থা নেই প্রতিষ্ঠানটির। রাইড শেয়ারিং এপ ব্যাবহারকারী রা বলছেন তাদের যে হেলমেট দেওয়া হয় তাও নিম্ন মানের। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মতে, দুর্ঘটনায় মানসম্মত হেলমেট মৃত্যুঝুঁকি কমায় ৪০ শতাংশ আর মারাত্মক যখম থেকে রক্ষা করে ৭০ ভাগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.