টটেনহ্যামের জয়

         এফএ কাপের ৫ গোলে বড় জয় টটেনহ্যামের । ১৮৯৪ সালে একদল তরুণ ব্যবসায়ী ও কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল ম্যারিন ক্লাব। বয়সে প্রবীণ হলেও, সাফল্যের তালিকাটা ততটা লম্বা নয় ম্যারিনের। তবে, তাতে কিছু যায় আসে না ক্লাবটির সমর্থকদের। ম্যারিন নামটা শুনলে অচেনা মনে হতেই পারে। অনেকেই ভাবতে পারেন এটা আবার কবে প্রতিষ্ঠিত হল। তবে না, মোটেও নতুন কোন ক্লাব নয়।
ম্যারিন ও টটেনহ্যামের দেখা হয় এফএ কাপে তৃতীয় রাউন্ডের। প্রতিপক্ষকে তাদের মাঠে কাবু করতে একরকম পণ করেই নামে টটেনহ্যাম । কারণ সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না তাদের, ইপিএলের শীর্ষস্থান থেকে চারে নেমে এসেছে। এফএ কাপে ভালো কিছু করার লক্ষ্যই ছিলো কোচ হোসে মরিনিয়োর।
     ২৪ তম মিনিটে গোল খাতা খুলে উৎসবের শুরু করেন কার্লোস ভিনিসিয়াস। প্রথম গোল করার ৩০ তম মিনিট পর ম্যারিন ট্রাভেল অ্যারেনায় ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সেই ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিআসই। ঠিক তারই  দু’মিনিট (৩২) মিনিট পর লুকাস মৌরা টটেনহ্যামের হয়ে তৃতীয় গোল করেন। গোলের পর গোল, গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই ৩৭ মিনিটে হ্যাটট্রিক স্বপ্ন পূরণ করেন ২৫ বছর বয়সী ভিনিসিয়স। ছন্নছাড়া ম্যারিনের দুর্গে ৬০ মিনিটে দলের হয় পঞ্চম গোলটি করেন ডিভাইন। টটেনহ্যাম হটস্পার ম্যারিনের মাঠে বিধ্বস্ত করে ঘরে ফেরে।