জো বাইডেন করোনাভাইরাসের টিকা নিলেন

করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন (৭৮)। স্থানীয় সময় সোমবার ডেলাওয়্যার ক্রিস্টিয়ানা কেয়ার হাসপাতালে তিনি টিকা নেন। পুরো আয়োজনটি টেলিভিশনে লাইভ সম্প্রচার করা হয়। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।ইতোমধ্যে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স, প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিসহ অনেক রাজনীতিক নেতা ফাইজারের এ টিকাটির প্রথম ডোজ নিয়েছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। রোববার থেকে যুক্তরাষ্ট্রে মর্ডানার টিকাও বিতরণ শুরু হয়েছে। শনিবার দেশটির ‍ওষুধ ও খাদ্য প্রশাসন (এফডিএ) এ টিকাটি ব্যবহারের অনুমতি দেয়।

এরই মধ্যে পাঁচ লাখেরও বেশি মার্কিন নাগরিককে টিকা দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। ৭৮ বছর বয়সী বাইডেন ডেলাওয়ার অঙ্গরাজ্যের একটি হাসপাতালে টিকা নেন। তাঁর স্ত্রী জিল বাইডেন দিনের শুরুর দিকে টিকার প্রথম ডোজ নেন। নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট এ তথ্য জানান।বাইডেন বলেন, এই টিকা গ্রহণ যে নিরাপদ, সেটা আমেরিকানদের দেখাতে তিনি তা তিনি নিচ্ছেন। টিকা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই।

টিকা নেওয়ার পর বাইডেন টুইটও করেন। টুইটে তিনি লিখেছেন, আজ আমি কোভিড-১৯ টিকা নিয়েছি। এটা সম্ভব করার জন্য যেসব বিজ্ঞানী ও গবেষক অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন, তাঁদের ধন্যবাদ। বাইডেনের রানিং মেট নবনির্বাচিত ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস ও তার স্বামী ডগলাস এমহফ আগামী সপ্তাহে করোনাভাইরাস টিকার প্রথম ডোজটি নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।  বাইডেনের টিম হোয়াইট হাউসে তাদের প্রশাসনের প্রথম ১০০ দিনে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ১০ কোটি লোককে কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার লক্ষ স্থির করেছে।

মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা এক কোটি ৮০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে এবং মৃত্যু হয়েছে তিন লাখ ১৯ হাজার লোকের। অক্টোবরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিন দিন হাসপাতালে ছিলেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি কবে টিকা নিবেন তা এখনও জানাননি। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত অবশিষ্ট শীর্ষ কর্মকর্তাদের মধ্যে যারা টিকাটির দুটি ডোজের প্রথমটি এখনও নেননি তাদের মধ্যে ট্রাম্প অন্যতম।