জাতিসংঘের তিন সংস্থার সহ-সভাপতি হলেন রাবাব ফাতিমা

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি), জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল (ইউএনএফপিএ) এবং জাতিসংঘ প্রকল্প সেবাসমূহের কার্যালয়ের (ইউএনওপিএস)  স্থানীয় সময় সোমবার (৭ ডিসেম্বর) নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এই তিন সংস্থার নির্বাহী বোর্ডের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন।
সোমবার নিউ ইয়র্কে এ নির্বাচন হয়। বুলগেরিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি এই বোর্ডসমূহের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে। অন্য দু’জন সহ-সভাপতি হলেন নেদারল্যান্ড ও গাম্বিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি।এর ফলে বাংলাদেশ জাতিসংঘের গুরুত্বপূর্ণ এই বোর্ড তিনটির সদস্য ও নেতৃবৃন্দের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার সুযোগ পাবে এবং তাদের কাজে কৌশলগত দিকনির্দেশনা দিতে সক্ষম হবে।

নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী বোর্ডের প্রথম সভায় গুরুত্বপূর্ণ এই সংস্থা তিনটির কাজে অবদান রাখার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সামর্থ্যের প্রতি আস্থা রাখা এবং বাংলাদেশকে সমর্থন জানানোর জন্য বোর্ড সদস্যদের ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রদূত ফাতিমা। তিনি বোর্ডসমূহের কাজ, বিশেষ করে কোভিড-১৯ মহামারীর প্রভাব কাটিয়ে উঠার প্রচেষ্টায় বাংলাদেশের পূর্ণ সহযোগিতার নিশ্চয়তা দেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বিশ্বব্যাপী উন্নয়ন এজেন্ডা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে জাতিসংঘ সংস্থাসমূহ এবং এর নির্বাহী বোর্ডসমূহের সাথে দীর্ঘসময় ধরে বাংলাদেশ একসাথে কাজ করছে। এর ফলে যে সুদৃঢ় আস্থা ও বিশ্বাসের সম্পর্ক তৈরি হয়েছে এই নির্বাচন তারই প্রতিফলন।

বিসিএস (পররাষ্ট্র ক্যাডার) ১৯৮৬ ব্যাচের কর্মকর্তা রাবাব ফাতিমা এর আগে নিউ ইয়র্ক, জেনিভা, কলকাতা ও বেইজিংয়ে বাংলাদেশ মিশনে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি হওয়ার আগে জাপানে রাষ্ট্রদূত ছিলেন রাবাব ফাতিমা। এছাড়া তিনি লিয়েনে দুটি আন্তর্জাতিক সংস্থায় কাজ করেছেন। ২০০৬-২০০৭ মেয়াদে লন্ডনে কমনওয়েলথ সচিবালয়ে মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান ছিলেন তিনি। এরপর ২০০৭-২০১৫ সাল  আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা-আইওএমে (ঢাকা ও ব্যাংককে) কাজ করেছেন তিনি। উল্লেখ যে, চলতি বছরে রাষ্ট্রদূত ফাতিমা ইউনিসেফ নির্বাহী বোর্ডের সভাপতির দায়িত্বও পালন করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.