‘গেম অব থ্রোনস’-এর শ্যুটিং

ক্রোয়েশিয়ার দক্ষিণে অ্যাড্রিয়াটিক সমুদ্রের পাড়ে ছোট শহর দুব্রভনিক। ভূমধ্যসাগরের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটনস্থল এই শহর।২০১১ সালের হিসাব অনুযায়ী এর মোট জনসংখ্যা ৪২ হাজার ৬১৫। ১৯৭৯ সালে ইউনেস্কোর বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় ঢুকে পড়েছে এই সমুদ্র শহর।বিশ্বের অন্যতম দূষণমুক্ত শহর দুব্রভনিক। দুব্রভনিককে দূষণমুক্ত করে তুলেছে এই শহরের অনন্য একটি বৈশিষ্ট্য। এই শহরে একটিও গাড়ি চলে না। পুরো শহরটাই পায়ে হেঁটে ঘুরতে হয়! শহরের আদি বাসিন্দা থেকে পর্যটক, সকলেই পায়ে হেঁটে ছোট এই শহরের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ঘুরে বেড়ান।আগে শহরটি বাইজেনটাইন সাম্রাজ্যের অধীন ছিল। পরে ভেনিস প্রজাতন্ত্রের অধীন হয়।

প্রাচীনতম এই শহর সিনেমার শ্যুটিংয়ের জন্যও ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। সমুদ্র, পুরনো ঘর-বাড়ি, রাস্তাঘাট সব মিলিয়ে প্রাচীন রাজাদের ফিল্মের জন্য আদর্শ।জনপ্রিয় টেলিভিশনক্রোয়েশিয়ার দক্ষিণে অ্যাড্রিয়াটিক সমুদ্রের পাড়ে ছোট শহর দুব্রভনিক। ভূমধ্যসাগরের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটনস্থল এই শহর।২০১১ সালের হিসাব অনুযায়ী এর মোট জনসংখ্যা ৪২ হাজার ৬১৫। ১৯৭৯ সালে ইউনেস্কোর বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় ঢুকে পড়েছে এই সমুদ্র শহর।বিশ্বের অন্যতম দূষণমুক্ত শহর দুব্রভনিক। দুব্রভনিককে দূষণমুক্ত করে তুলেছে এই শহরের অনন্য একটি বৈশিষ্ট্য। এই শহরে একটিও গাড়ি চলে না। পুরো শহরটাই পায়ে হেঁটে ঘুরতে হয়! শহরের আদি বাসিন্দা থেকে পর্যটক, সকলেই পায়ে হেঁটে ছোট এই শহরের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ঘুরে বেড়ান।আগে শহরটি বাইজেনটাইন সাম্রাজ্যের অধীন ছিল। পরে ভেনিস প্রজাতন্ত্রের অধীন হয়।প্রাচীন এই শহর সিনেমার শ্যুটিংয়ের জন্যও ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। সমুদ্র, পুরনো ঘর-বাড়ি, রাস্তাঘাট সব মিলিয়ে প্রাচীন রাজাদের ফিল্মের জন্য আদর্শ।জনপ্রিয় টেলিভিশন