করোনাভাইরাস মহামারী প্রতিরোধে ভূমিকা রাখায় বাংলাদেশি চিকিৎসক কে চীনের সম্মাননা

চীনে বাংলাদেশি চিকিৎসক মিসবাউল ফেরদৌস  করোনাভাইরাস মহামারী প্রতিরোধে ভূমিকা রাখায় বেল্ট অ্যান্ড রোড ফ্রেন্ডশিপ অ্যাওয়ার্ড ২০২০ পেয়েছেন। চিকিৎসক  মিসবাউল ফেরদৌসের জন্ম চট্টগ্রামে।  মিসবাউল ফেরদৌস  চীনের শ্যানডং বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি এশিয়ান সোসাইটি অব কার্ডিওলজি’ (এএসসি) এর সহ সভাপতি  হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। পাশাপাশি তিনি এবছর এশিয়া প্যাসিফিক প্রাইমারি হেল্থ অ্যাসোসিয়েশন (এপিপিএইচএ) এর ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে আগামী ৬ বছরের জন্য নিযুক্ত হয়েছেন।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বেইজিংয়ের জাতীয় সম্মেলন কেন্দ্রে চায়না কার্ডিওভাসকুলার হেলথ ২০২০ শীর্ষক সম্মেলনে এ সম্মাননা তার হাতে  তুলে দেওয়া হয়। যৌথভাবে এ সম্মেলনের আয়োজন করে ‘চাইনিজ কার্ডিওভাসকুলার অ্যাসোসিয়েশন, শিনশিন হার্ট ফাউন্ডেশন এবং চীন হার্ট হাউস ।

আয়োজকরা জানান, এ বছরের শুরুর দিকে চীনে করোনাভাইরাস মহামারী ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে এবং চীন জুড়ে মেডিকেল সরঞ্জামাদি সংকট দেখা দেয়।  মিসবাউল  ফেরদৌস  তখন সৌদি আরবে অবস্থান করছিলেন। সেইসময় তিনি নিজস্ব অর্থায়নে সৌদি আরবের বিভিন্ন মেডিকেল স্টোর থেকে মাস্ক সংগ্রহ করে বেইজিং ফিরে আসেন। পরে এ মাস্কগুলো চীনের বিভিন্ন প্রদেশে বিতরণ করেন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় হাসপাতালগুলোর জরুরি পরিস্থিতিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন।

অবশেষে সম্মাননা পাওয়ার অনুভূতি জানিয়ে মিসবাউল ফেরদৌস জানান, আমি এ পুরস্কারটি আমার সব কার্ডিওলজিস্ট ফ্রেন্ডস, বেল্ট অ্যান্ড রোডের দেশগুলোর জন্য উৎসর্গ করছি। বিশেষভাবে আমার  বাংলাদেশি চিকিৎসক যারা আমাকে সব সময় সাহায্য করে থাকেন। আমি বিশ্বাস করি, সামনের বছরগুলোতে বাংলাদেশ-চীনের সম্পর্ক আরও দৃঢ় ও উন্নত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.