কলার বিভিন্ন গুন

স্বাদ এর পাশাপাশি চুল ও ত্বক এর বিভিন্ন উপকারে আসে কলা।এতদিন শুধু এর খাবার এর মাধ্যমে উপকার এর কথা জেনেছি।আসুন আজ দেখেনেই এর চুল ও ত্বকের উপকারিতা। ত্বকের জন্যঃ তৈলাক্ত ভাব নিয়ন্ত্রণে: কলা মানুষের দেহে এক্সফোলিয়েটার হিসেবে কাজ করে। তাই ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব কমে আসে। ব্রণের চিকিৎসায়: ভিটামিন এ, জিংক ও ম্যাঙ্গানিজের মতো অনেক পুষ্টি উপাদান আছে কলাতে।

যা মানুষের শরীরের প্রদাহ দূর করতে সহায়তা করে। কলার খোসা ত্বকের ব্রণ সারাতে কাজ করে। অ্যান্টি এজিং হিসেবে: কলাতে উচ্চ মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা প্রকৃতির বোটক্স হিসেবে কাজ করে। এটি মানুষের বয়স বৃদ্ধি সত্ত্বেও ত্বকের উজ্জ্বলতা ও মসৃণতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। চুলের জন্যঃ রুক্ষতা দূরীকরণে: কলায় উচ্চ মাত্রায় সিলিকা থাকে। এটি শুকনো চুলকে মসৃণ করতে সহায়তা করে।

তাছাড়া, সিলিকা দেহে শোষিত হয়ে কোলাজেন প্রোটিন তৈরি করে। যেটা সুন্দর চুল তৈরিতে ভূমিকা রাখে। চুলের বৃদ্ধিতে: প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় কলার ব্যবহার মানুষের চুলের বৃদ্ধি ও চুলের গোড়া শক্তিশালী করে তোলে। চুলের উজ্জ্বলতায়: কলাতে আছে প্রচুর পরিমাণ পটাসিয়াম, ভিটামিন, ক্যালসিয়াম ও কার্বোহাইড্রেট। এই সব চুলের পুষ্টি জোগায়। আর চুলকে করে তোলে মসৃণ ও চকচকে।