ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল ঢাকায়

    ১০ জানুয়ারি (রবিবার) সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। করোনাভাইরাসকে পিছিয়ে ফেলে এক দল নতুন মুখ নিয়ে ঢাকায় পা রেখেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। ঢাকায় এসে সাতদিন কোয়ারেন্টাইনে থাকবে সফরকারীরা। সফরকারীদের পাঁচবার করোনা পরীক্ষা করা হবে। বিমানবন্দরে নেমেই উইন্ডিজ ক্রিকেটার, টিম ম্যানেজমেন্টের সবাইকে করোনা পরীক্ষার নমুনা দিতে হবে। দ্বিতীয়বার পরীক্ষা হবে তৃতীয় দিনে, তখন হোটেল রুমে বন্দী থাকবেন সবাই। পরপর দুইবার নেগেটিভ রিপোর্ট পেলে ১৪ জানুয়ারি থেকে মাঠে নেমে অনুশীলন করতে পারবেন তারা এবং তা শুধু নিজেদের মধ্যে। ষষ্ঠ বা সপ্তম দিনে তৃতীয়বার পরীক্ষা হবে। তারপরই অনুশীলনে বাংলাদেশের নেট বোলার পাবে ক্যারিবিয়ানরা। সিরিজের মাঝামাঝি চতুর্থবার এবং দেশে ফেরার দুই দিন আগে পঞ্চম ও শেষবার করোনা পরীক্ষা হবে তাদের।
    দুই টেস্ট ও তিন ওয়ানডে খেলতে আজ সকালে ঢাকায় এসেছে। করোনাভাইরাসের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের মূল স্কোয়াডের অনেকেই দলে নেই। অন্যদিকে, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল টানা ১১ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। তবে ক্যারিবীয়রা ঢাকায় পা রাখার আগেই একটি ধাক্কা খেয়েছে। রোমারিও শেফার্ডকে কোভিড-১৯ এর জন্য ওয়ানডে স্কোয়াড থেকে শেষ মুহূর্তে নাম প্রত্যাহার করেছেন।
     ২০ জানুয়ারি সিরিজ শুরু হবে মিরপুরে ওয়ানডে দিয়ে। ২২ জানুয়ারি দ্বিতীয় ওয়ানডেও একই ভেন্যু মিরপুরে। শেষ এবং তৃতীয় ওয়ানডে ২৫ জানুয়ারি চট্টগ্রামে। ৩-৭ ফেব্রুয়ারি জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট এবং ১১-১৫ ফেব্রুয়ারি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে।