অভিনেতা আব্দুল কাদেরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি গভীর শোক

    অভিনেতা কাদের আজ শনিবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। আব্দুল কাদেরের পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম জেমি তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা বলেন, সাবলীল ও স্বতঃস্ফূর্ত অভিনয়ের মধ্য দিয়ে আবদুল কাদের মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
    প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে মারা যান গুণী অভিনেতা আব্দুল কাদের। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। সম্প্রতি ক্যান্সার ধরা পড়ার পর গত ২১ ডিসেম্বর অভিনেতা আব্দুল কাদেরের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। তার পরিবারের সদস্যরা জানান, গত ২০ ডিসেম্বর চেন্নাইয়ের ভেলর শহরের মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে থেকে দেশে ফিরিয়ে এনে সরাসরি রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় কাদেরকে। সেখানে করোনার পরীক্ষা করা হলে ২১ ডিসেম্বর তার ফলাফল পজিটিভ আসে।
   অসুস্থ বোধ করার পর গত ৮ ডিসেম্বর চেন্নাইয়ে নেয়া হয় আব্দুল কাদেরকে। সেখানে পরীক্ষার পর তার শরীরে অগ্ন্যাশয়ের ক্যান্সার শনাক্ত হয়, যা সংক্রমণের চতুর্থ স্তরে পৌঁছে গেছে বলে জানান চিকিৎসকরা। হুমায়ূন আহমেদ রচিত ‘কোথাও কেউ নেই’ ধারাবাহিক নাটকে ‘বদি’ চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক পরিচিতি পান আব্দুল কাদের। থিয়েটারের সদস্য হয়ে দলটির ৩০টি প্রযোজনায় অভিনয় করেছেন তিনি। মঞ্চে অভিনয় করেছেন ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়, তোমরাই, ‘স্পর্ধা’, মেরাজ ফকিরের মা, দুই বোন, এখনো ক্রীতদাস, নাটকগুলোতে।