অজি ক্রিকেটার ওয়ার্নারের খেলার সম্ভাবনা

   ডেভিড ওয়ার্নারকে নিয়ে কল্পনার সমাপ্তি আপাতত ধরে নেওয়াই যাই। জাস্টিন ল্যাঙ্গার স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়ে জানিয়েছেন ,   অভিজ্ঞ এই ওপেনার শতভাগ ফিট না হলেও সিডনি টেস্টে খেলবে । খেলার মতো ফিট হয়ে উঠতে লড়াকু মানসিকতার এই ব্যাটসম্যান সম্ভব সব কিছু করছেন বলেও জানালেন অস্ট্রেলিয়ান কোচ। ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শারীরিক সমস্যা জনিত  চোট নিয়ে  ওয়ার্নার মাঠ ছাড়ার পর থেকেই বাইরে ।তিনি এখনো  কুঁচকির সেই চোট থেকে  পুরোপুরি ভাবে সেরে ওঠেননি । তবে বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির প্রথম দুই টেস্টে ব্যাটসম্যানদের বাজে পারফরম্যান্সের জন্য  তৃতীয় টেস্টে দলের সেরা ওপেনারকে একাদশে পেতে  অস্ট্রেলিয়ার কোচ মরিয়া হয়ে উঠেছে ।
    মঙ্গলবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে  কোচ ল্যাঙ্গার জানান , বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া টেস্টে ডেভিড  ওয়ার্নারের খেলার সম্ভাবনা খুব বেশি । তারা খুবই আশাবাদী প্রকাশ করেছে যে তৃতীয় টেস্টের জন্য ডেভিড ওয়ার্নার  প্রস্তুত হয়ে উঠবে। তাদের মতে সে একজন যোদ্ধা। কোচ জানান প্রথম দিন থেকেই  বলে আসছে, ডেভিড তৃতীয় টেস্টের জন্য তৈরি হয়ে উঠতে সম্ভব সবকিছুই সে করছে। তিনি আরও বলেছেন যে তাকে দেখে মনে হচ্ছে সে খুবই ভালোভাবে নড়াচড়া করতে পারছে। এই টেস্টে খেলার জন্য  সে দৃঢ়ভাবে প্রস্তুত বলেই তারা মত প্রকাশ করেছেন।  তিনি আরও জানালেন আজকে বিকেলে অনুশীলনের সময় আমরা  তাকে  শেষবারের মতো আরও পরখ করে দেখব  তার পর আমরা আলোচনা বসবো। তবে তাদের মতে যতদূর মনে হচ্ছে, তৃতীয় টেস্টে সে খেলবেই।
    অবশ্য ওয়ার্নারকে  নিশ্চিতভাবে এই টেস্টে শতভাগ ফিট হিসেবে পাওয়া যাবে না । তবে ল্যাঙ্গারের দাবি ওয়ার্নার পুরোপুরি ফিট না হলেও তাকে দিয়ে খেলিয়ে দেওয়ায় খুব বেশি ঝুঁকি নেই। কিছুটা ব্যথা হলেও তাকে ঐ ব্যাথা নিয়েই খেলতে হবে  এটা প্রায় সব ক্রিকেটারের ক্ষেত্রেই হয়।  এইটুকু ব্যাথা নিয়ে খেলতে  সে তৈরি এবং আমরা আশা করি তা খুব বেশি সমস্যার সৃষ্টি করবে না বলে জানিয়েছেন কোচ। যদি তাকে দিয়ে  খেলানোয় বড় কোনো ঝুঁকি থাকত তাহলে অবশ্যই আমরা সেই সিদ্ধান্ত নিতাম  না। তার পুনর্বাসন খুব ভালো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।তবে এক্ষেত্রে তার স্রেফ মাঠে চলাফেরা একটু সীমাবদ্ধ থাকতে পারে। অনেক দিন পর টেস্ট খেলতে হবে বলে একটু শ্রান্তিও পেয়ে বসতে পারে।
    তবে ওয়ার্নার  আগেই জানিয়েছেন  ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে তার খুব বেশি  সমস্যা হবে না। তবে প্রশ্ন এখন রানিং বিটুইন দা উইকেট আর ফিল্ডিং নিয়ে। ল্যাঙ্গার জানিয়েছেন এই সমস্যার  সমাধানও দলনবের করে ফেলেছে। তবে এক্ষেত্রে মাঠে তার বিচরণের একটু ভিন্নতা আনতে হবে।সম্ভবত  হয়তো তাকে স্লিপে ফিল্ডিং করতে হবে।কোচ আরও  জানালেন যে তার এমন প্রতিভা আছে যা আমার এখনও মনে আছে, ২০১৯ অ্যাশেজে লিডসে স্লিপে সে দারুণ কিছু ক্যাচ নিয়েছিল ।